নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন শুনানি ১৯ আগস্ট | সংবাদ

1

স্টাফ রিপোর্টার: নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন শুনানি ১৯ আগস্ট। ছবি সংগৃহীতনবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশের ওপর হাইকোর্টের দেয়া স্থিতাবস্থার আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি হবে আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে।
বুধবার সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান বিষয়টি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে ১৯ আগস্ট শুনানির জন্য রাখেন। চেম্বার আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।
অন্যদিকে নিউজপেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের (নোয়াব) সভাপতি হিসেবে রিটকারী দৈনিক প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের পক্ষে ছিলেন এ এফ হাসান আরিফ।
অমিত তালুকদার সাংবাদিকদের বলেন, চেম্বার বিচারপতি বলেছেন, তিনি এক সময় মতিউর রহমানের আইনজীবী ছিলেন। তাই আবেদনটি না শুনে প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠিয়ে দিতে চাইলে দুই পক্ষই আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠানোর জন্য বলেন।
পরে আদালত ১৯ অগাস্ট তারিখ রেখে নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দিয়েছেন। গত ৬ অগাস্ট মতিউর রহমানের করা রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থা জারি করেন।
পাশাপাশি রুলও জারি করেন হাইকোর্ট। শ্রম আইনের ১২৮ বিধি অনুযায়ী ‘অংশীজনদের আপত্তি উত্থাপনের সুযোগ না দিয়ে একতরফাভাবে’ নবম ওয়েজবোর্ড চূড়ান্তকরণ এবং গেজেট জরির সুপারিশ করে তা সরকারের কছে পাঠানো কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে।
সংশ্লিষ্ট মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্য সচিব, শ্রম সচিব এবং নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যানকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।
রিট আবেদনে বলা হয়েছে, শ্রমবিধির ১২৮ বিধি অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের ‘আপত্তি উত্থাপনের সুযোগ না দিয়ে’ নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান একতরফাভাবে নবম ওয়েজবোর্ড চূড়ান্ত করেছেন, যা ‘কতৃত্ববহির্ভূত ও বেআইনি’। এজন্য নবম ওয়েজবোর্ড চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়াটি একতরফা, অসৎ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং পক্ষপাতমূলক। সুতরাং চূড়ান্তভাবে যাচাই-বাছাই ছাড়া গেজেট প্রকাশের অনুমতি দেয়া যায় না। সূত্র যুগান্তর