নায়ক থেকে খল গাপটিল | সংবাদ

3

স্টাফ রিপোর্টার: এবারের বিশ্বকাপে এভাবেই আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন মার্টিন গাপটিল। ছবি: সংগৃহীতসকালের সূর্যের আলো দেখে দিনের পূর্বাভাস যেমন বুঝা যায়। ঠিক তেমনি ক্রিকেটে ওপেনিং জুটি দেখেও কিছুটা আন্দাজ হয় দলের ইনিংস কতো দূর যেতে পারে!
ক্রিকেটে ওপেনিং জুটিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। বলা হয়ে থাকে, শুরুটা ভালো হলে পরের ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যায়। তারা বুক চিতিয়ে লড়াইয়ের সাহস পান। অথচ ওপেনার হয়েও দলকে ভালো শুরু এনে দিতে পুরোপুরি ব্যর্থ মার্টিন গাপটিল।
গত বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৩৭ রানের অপরাজিত এক ইনিংস খেলে নিউজিল্যান্ডকে সেমিফাইনালে তুলে দিয়েছিলেন গাপটিল।
বিশ্বকাপের ইতিহাসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলার পাশাপাশি গত আসরে নয় ম্যাচ খেলে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরির সাহায্যে সর্বোচ্চ ৫৪৭ রান করেছিলেন কিউই এ ওপেনার।
আগের আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক গাপটিলের এবারের পারফরম্যান্স নিম্নমুখী। চার বছরের ব্যবধানে ৩২ বছর বয়সী এই ওপেনারের ব্যাটিংয়ে ধার অনেকটাই কমে গেছে। আগের মতো তার ব্যাট কথা বলছে না। যে মার্টিন ক্রিকেটের ২২ গজে বোলারদের শাসিয়ে রানের বন্যা বইয়ে দিতেন। সেই গাপটিলের এমন বাজে ব্যাটিং সত্যিই অগ্রহনযোগ্য।
চলতি বিশ্বকাপে ব্যাটিংয়ে চরম ব্যর্থ নিউজিল্যান্ডের এ ওপেনার। একারের বিশ্বকাপের ১০ ম্যাচে মাত্র ১৮৬ রান করেছেন তিনি।
শ্রীলংকার বিরুদ্ধে ৭৩ রানের ইনিংসের পর টানা আট ম্যাচে ব্যর্থ নিউজিল্যান্ডের শক্তিমান এ ব্যাটসম্যান। বিশ্বকাপের এবারের আসরে নয় ম্যাচে তার সর্বমোট (৭৩, ২৫, ০, ৩৫, ০, ৫, ২০, ৮, ১ ও ১৯) রান মাত্র ১৮৬।
একজন ওপেনার ও নিউজিল্যান্ড দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে তার কাছ থেকে দল যে প্রত্যাশা করেছিল তা পূরণে চরমভাবেই ব্যর্থ গাপটিল। তবে অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও পেস বোলারদের পারফরম্যান্সের কারণে গাপটিলের পারফরম্যান্সে অতটা প্রভাব পড়েনি।
কিন্তু ফাইনালের মতো বড় মঞ্চে জ্বলে উঠতে পারেন এ আশা ছিল গত বিশ্বকাপের ডাবল সেঞ্চুরিয়ান গাপটিল ভক্তদের। কিন্তু ১৮ বলে ১৯ রান সাজঘরে ফেরার মধ্য দিয়ে সে আশাও গুড়েবালি হয়ে যায়।
চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ১৩৬ রানের মামুলি স্কোর তাড়া করতে নেমে কলিন মুনরোর সঙ্গে উদ্বোধনীতে ১৩৭ রানের জুটি গড়ে দলকে ১০ উইকেটের বড় জয় উপহার দিয়েছিলেন পাগটিল। এরপর আট ম্যাচে উদ্বোধনীতে সেঞ্চুরির জুটিতে দূরে থাক, ফিফটি রানের পার্টনারশিপও গড়তে পারেননি তিনি।
রোববার ইংল্যান্ডের লর্ডসে বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচে ইংলিশদের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৬.২ ওভারে ২৯ রানে সাজঘরে ফেরেন গাপটিল।
তবে এ বিশ্বকাপে একবারই আলোচনায় এসেছিলেন গাপটিল, তাও ব্যাটিংয়ে নয় ফিল্ডিংয়ে। সেমিফাইনালে ভারতের বিপক্ষে দলের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে রান আউট করে নিউজিল্যান্ডকে ফাইনালে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছিলেন।
এবারের বিশ্বকাপে নামে মাত্র একটি ফিফটি (৭৩*) ছাড়া তেমন কোনো সাফল্যই পাননি ডানহাতি এ ওপেনার। সূত্র যুগান্তর