কা’রাগারে বসে”ই নৌকাকে হারি’য়ে চেয়ার’ম্যান -স্বত’ন্ত্র প্রার্থী

কা’রাগারে বসে”ই নৌকাকে হারি’য়ে চেয়ার’ম্যান -স্বত’ন্ত্র প্রার্থী

খুলনার ‘তেরখাদা উপজে’লার ছাগলাদহ ইউনিয়ন পরি’ষদের নির্বাচনে কা’রাগারে থেকেও বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী এসএম দীন ইসলাম। দীর্ঘদিন ধরে তিনি জোড়া হ’ত্যা মামলায় খুলনা জেলা কা’রাগারে আছেন।রোববার রাতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা’ আবিদা সুলতা’না তাকে বেসরকারি’ভাবে চেয়ার’ম্যান হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।আনারস প্রতীকে তিনি ৫ হাজার ৮৮২ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৩০ ভোট।খোঁজ ‘নিয়ে জানা যায়,

 

 

২০১৯ সালের ৭ আগস্ট রাত ‘সাড়ে ৩টার দি’কে খুলনার তেরখাদা উপজেলার ছাগলাদাহ ইউনিয়নের পহরডাঙ্গা গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে নাঈম শেখ নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় গুরুতর আহত হন না’ঈমের বাবা হিরু শেখ (৫৫)। পরে তিনিও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।এ ঘটনায় পরদিন ৮ আগস্ট নিহতের মা মাফুজা বেগম বাদী হয়ে ১৭ জনের’ নাম ‘অজ্ঞাত ১০ থেকে ১’২ জনের’ বিরুদ্ধে তেরখাদা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ওই বছ’র ২০ আগস্ট নাঈম হত্যায় মূল ‘পরিকল্পনাকা’রী ও অর্থ জোগানে’র অভিযোগে ছা’গলাদাহ ই’উনিয়ন ‘পরিষদের চেয়ারম্যান এস’ এম দ্বীন ইসলামকে গ্রে’প্তার করে জেলা ‘গোয়েন্দা ।পুলিশ

 

 

তাকে গ্রেপ্তারের পর ওই’ ইউনিয়নের মানুষ পক্ষে-বিপক্ষে আন্দোলন শুরু করে। এক পর্যায়ে ২০২১ সালের ১১ জানুয়ারি মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. আবু জাফর’ রিপন স্বাক্ষরিত এক’ প্রজ্ঞাপনে তাকে চেয়ারম্যান ‘পদ থেকে সাময়িক বর’খাস্ত করা হয়।প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, তেরখাদা উপজেলার ছাগলাদহ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম দ্বীন ইসলাম জোড়া’ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে’ জেলহাজতে আছেন। ফলে জেলা প্রশাসক ইউপি চেয়ারম্যা’র বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ)

 

আইন ‘২০০৯ অনুযায়ী ব্যব’স্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছেন।প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, চেয়ারম্যান এসএম দ্বীন ইসলাম জেলহাজতে থাকায় জনস্বার্থে তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদে ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণ থে’কে স’মীচীন নয় বলে সরকার মনে করে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net