একের পর এক লঞ্চ দুর্ঘটনা, সামাজিক মাধ্যমে তীব্র ক্ষোভ

একের পর এক লঞ্চ দুর্ঘটনা, সামাজিক মাধ্যমে তীব্র ক্ষোভ

দুর্ঘটনায় মৃত্যু যেন কিছুতেই রোধ হচ্ছে না। চালকদের অদক্ষতা, নানা ধরনের অনিয়ম, প্রতিযোগিতামূলক মানসিকতাসহ বিভিন্নভাবেই দুর্ঘটনা ঘটছে। দেশের নদী পথে একের পর এক এমন দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি নিয়ে চরম ক্ষোভ জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর চর সৈয়দপুরের আল-আমিননগর এলাকায় একটি কার্গো জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটেছে। এই দুর্ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দ্রুতই ছড়িয়ে পড়ে। দৃশ্যটি অনেকেই শেয়ার করে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া তুলে ধরেন।

আজকের দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত চার’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া লাশের মধ্যে তিনজন নারী ও একজন পুরুষ। ঘটনায় বহু নিখোঁজ রয়েছে। উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশের ডুবুরি দল।

কয়েকমাস আগে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চে আগুন লেগে অন্তত ৪০ জন মারা গেছে। লঞ্চে আগুন লাগার পরে অনেকে নদীতে লাফিয়ে পড়ে। ফলে নদী থেকেও মৃতদেহ পাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় শোক এবং ক্ষোভের পাশাপাশি তোলপাড় সৃষ্টি হয় গোটা দেশে।

এর আগে বিভিন্ন সময়ে ভয়াবহ নৌ দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে যথারীতি তদন্ত কমিটিও করা হয়েছে। কিন্তু দুর্ঘটনা থামেনি। এসব নিয়ে ক্ষোভ জানিয়ে ফেসবুকে মোঃ মনির খান লিখেছেন, ‌”এটা নিয়ে কয়েক দিন মিডিয়া ব্যস্ত থাকবে।নিয়ম রক্ষার তদন্ত কমিটি গঠন হবে। আহত নিহতদের কিছু টাকা ধরিয়ে দিবে। পরে তদন্ত কমিটি বলবে ফিটনেসবিহীন অথবা মাদকাসক্ত ড্রাইভার ইত্যাদি ইত্যাদি।মন্ত্রী এসে বলবে, জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। ব্যাস,,,সকল সমস্যার সমাধান হয়ে গেল। তারপর সবাই আবার সবার মতো ব্যস্ত। এটাই বাস্তবতা। ধিক্কার শত ধিক্কার জানাই এরকম রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার।”

লুতফর রহমান রুবেল লিখেছেন, ”এই ধরনের অনাকাংখিত ঘটনা আর কত ঘটবে…? কিছুদিন আগে একই পথে একই ভাবে “সাবিত আল হাসান” বড় কার্গোর ধাক্কায় ডুবল। আজ একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। কেন বড় কার্গোর সামনে ক্যামেরা নেই। এই ধরনের কার্গোর চালক’ত পিছন থেকে কিছুই বুঝবেনা যদি কেউ সামনে পরে যায়। অনতিবিলম্ভে দেশের সকল বড় বড় কার্গোর সামনে ক্যামেরা লাগানো হোক।”

ক্ষোভ জানিয়ে ফরিদ বিন আলী লিখেছেন, ”দেশে আইনের শাষণ না থাকার কারণে বার বার এমন হয়, এইতো কয়েক মাস আগের ঘটনা আমাদের সরকারের শীর্ষ স্থানীয় এক এমপির কার্গো জাহাজ নির্বিঘ্নে এমন ঘটনা ঘটিয়ে পার পেয়ে গেছে, এটা ও তেমন ই হবে,, এদেশের সাধারণ মানুষের কোন মূল্য নেই তারা শুধু শাষকের শোষণ হওয়ার জন্য জন্ম নিয়েছে।”

হাসিব লিসান লিখেছেন, ”ভিডিও ফুটেজে দুর্ঘটনার দৃশ্য দেখে মনে হয়েছে লঞ্চ চালকের ভুলের কারনেই দুর্ঘটনা ঘটেছে।কার্গো জাহাজ নির্দিষ্ট স্পিডে সোজাভাবেই চলছিল।লঞ্চটি জাহাজকে ওভারটেক করে বামে চাপ দেয়, যার কারনে এই দুর্ঘটনা।আর জাহাজের তো গাড়ির মতো ব্রেক করার সিস্টেম নাই। সুতরাং সংঘর্ষের পরে জাহাজ চালকের কিছুই করার ছিল না।লঞ্চ চালক যদি ইঞ্জিন স্লো করে জাহাজকে আগে যেতে দিয়ে তারপরে বামে চাপ দিতো তাহলে হয়তো ঘাটে পৌছাতে ৫ মিনিট সময় বেশী লাগতো, কিন্তু লঞ্চের নিরীহ যাত্রীদের প্রাণ বেচে যেতো।”

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net