হাই’কো’র্টের ‘কাছে’ ক্ষমা’ চাইলে’ন ২ বি’চার’ক

হাই’কো’র্টের ‘কাছে’ ক্ষমা’ চাইলে’ন ২ বি’চার’ক

গত ৪ আ’গস্ট রাজধানীর বনানীর বাসা’য় অভিযান চালিয়ে পরীমনিকে গ্রেপ্তার এবং তার বিরুদ্ধে একটি মাদক মামলা করে র‍্যাব। এরপর তার জামিনের আবেদন বেশ কয়েকবার খারিজ হয়ে যায় এবং তাকে ২৭ দিন কাটাতে হয় ‘কারবন্দি অবস্থাকটি মাদক মামলায় অভিনেত্রী পরীমনিকে ‘বেশ কয়েকবার রিমান্ডে দেওয়ার ঘটনায় আজ (রোববার) হাইকোর্টের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন নিম্ন আদালতের দুই বিচারক।এর আগে, গত ৪ আগস্ট রাজধানীর বনানীর বাসায় অ’ভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার এবং তার বিরুদ্ধে একটি মাদক মামলা করে র‍্যাব।এরপর তার জামিনের আবেদন বেশ কয়েকবার খারিজ হয়ে যায় এবং তাকে ২৭ দিন কাটাতে হয় কারবন্দি অবস্থায়। এ স’ময়ে বিচারক দেবব্রত বিশ্বাস ও আতি’কুল ইসলাম

তিনবার অভিনে’ত্রী’কে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন।জ ওই দুই বিচারক তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বিভাগে বিনাশর্তে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন বলে দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডকে নিশ্চিত করেছেন তাদে’র আইনি পরামর্শক আব্দুল আ’লীম মি’য়া জুয়েল। আজ এ ব্যাপারে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।বলে রাখা ভালো, তিন দফা রিমান্ডের পর জামিন আবেদনের শুনানি শেষে ৩১ আগস্ট দুপুরে ৫০ হাজার টাকার আর্থিক মুচলেকায় পরীমনির জামিন আদেশ দেন ঢাকা মহা’নগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েস। জামি’নের কাগজপত্র কারাগারে পৌঁছানোর পর পরদিন সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কাশিমপুর কারাগার থেকে ছাড়া পান পরীমনি। ‘

সর্বশেষ গত ১৯ আগস্ট পরী’মনির জা’মিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তৃতীয় দফায় ‘১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন সিএমএম আদালত। সিএমএম আদালতের জামিন নামঞ্জুরের ওই আদেশের বিরুদ্ধে গত ২২ আগস্ট মহানগর দায়রা জজ আদালতে পরীমনির পক্ষে জামিন আবেদন ‘দাখিল করা হয়। বিচারক ১৩ সেপ্টেম্বর জামিন আবেদনের শুনানির দিন ঠিক করেন। জামিন শুনানির দিন আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর ২১ দিন বিলম্বে ধার্য্য হওয়ায় তা চ্যা’লেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন পরীমনির আইনজীবী ‘জেডআই খান পান্না ও মো. মজিবুর রহমান।

গত ২৬ আগস্ট হাইকো’র্ট ২ দিনের মধ্যে কেন জামিন শুনানির নির্দেশ দেওয়া হবে না এই মর্মে বিচারক কেএম ইমরুল কায়েসকে ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কার’ণ দর্শানোর রুল জা’রি করেন।

বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম এবং বি’চারপতি কেএম জাহি’দ সারওয়ার কাজলের বেঞ্চ ওই আদেশ প্রদান করেন। হাইকোর্টের ওই আদেশ পাওয়ার পর বিচারক ইমরুল কায়েস হাইকোর্টের রুলের জবাব দেওয়ার আগেই ৩১ আগস্ট ‘জামিন শুনানির তারিখ পুনঃনির্ধারণ করেন

পরীমনির কাছে ১৮ লিটার মদ এবং এ’লএসডি পাওয়ার যে অভিযোগ এ’সেছে তাতে ফৌজদারী কার্য’বিধির ৪৯৬ ধারা অনুসারে তিনি জামিনের অধিকারী ছিলেন না। কিন্তু তার বিরুদ্ধে যে অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছিল তার সর্বোচ্চ শাস্তি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড- মৃত্যুদণ্ড নয়।ফৌজদারী কার্যবিধির ধারা ৪৯৬ এবং ৪৯৭, সংবিধানের ৩২ অনুচ্ছেদকেই তুলে করে যেখানে স্পষ্ট বলা আছে, আইনানুযায়ী ব্যতীত জীবন ও ব্যক্তি-স্বাধীনতা হইতে কোনো ব্যক্তিকে বঞ্চিত করা যাবে না। সু’তরাং

, বিবেচনার ক্ষমতা প্রয়োগ ক’রে, বিচারকরা ফৌজদারী কার্যবিধির ৪৯৭ ধারার অধীনে পরীমনির জামিন মঞ্জুর করতে পারতেন। পাশাপাশি একজন নারী হওয়ায় তার জামিন পাওয়ার বিশেষ সুযোগ ছিল।কিন্তু নিম্ন আদালতের বি’চার’করা আইন প্রয়োগকারী সং’স্থার আবেদনে সাড়া দিয়ে’ তাকে রিমান্ডে পুলিশের’ হেফাজতে রাখেন এবং তার জামিন নামঞ্জুর করেন। এমনকি বিচারক শুনানি ছাড়াই তার জামিনের আবেদন ২১ দিন পর্যন্ত মুলতবি রেখে’ছিলেন”

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net