ওরা দুজন নিজেদের ইচ্ছায় সবকিছু করেছে,এখানে ধর্ষণের কিছু দেখি না:সেই আশিকের বাবা

ওরা দুজন নিজেদের ইচ্ছায় সবকিছু করেছে,এখানে ধর্ষণের কিছু দেখি না:সেই আশিকের বাবা

বাংলাদেশের সব থেকে জনপ্রিয় পর্যটন এলাকার নাম কক্সবাজার।সারা বছরই এই কক্সবাজার মুখরিত থাকে পর্যটকদের ভীড়ে। আর এই কারনে থাকে দেশের আলোচনায়। কিন্তু এবার দুটি নেক্কারজনক ঘটনার কারনে কক্সবাজার নিয়ে হচ্ছে আলোচনা সমালোচনা। বিশেষ করে পর্যটক নারীর সাথে ঘটে যাওয়া ঐ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো ঘটে গেছে নতুন একটি ঘটনা। জানা যায় কক্সবাজারে এবার এক স্কুলছাত্রীকর করা হয়েছে ধ’র্ষ’ণ’। আর সেই ঘটনা নিয়ে করা মামলার প্রধান আসামি মোহাম্মদ আশিককে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার ভোরে তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার র‌্যাব-১৫-এর উপ-অধিনায়ক তানভীর হাসান।

তিনি জানান, মেয়েটি স্থানীয় একটি স্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে পড়েন। তাকে ধর্ষণের অভিযোগে সদর মডেল থানায় ১৮ ডিসেম্বর পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেছিলেন ছাত্রীর বাবা।
প্রাথমিক তদন্ত শেষে র‌্যাব জানতে পারে প্রধান আসামি মোহাম্মদ আশিক কক্সবাজারের চকরিয়ায় অবস্থান করছেন। সেখানে অভিযানে গেলে র‌্যাব পৌঁছার আগেই তিনি চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা হন। পরে ধাওয়া করে তাকে আনোয়ারা থেকে গ্রেফতার করা হয়।
র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আশিক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাকে থানায় হস্তান্তর করা হবে।

এজাহারে বলা হয়েছে, আসামি মোহাম্মদ আশিক বিভিন্ন সময় ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। গেল ১৩ ডিসেম্বর স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে তাকে তুলে নিয়ে যান আশিক ও তার সহযোগীরা। হোটেল-মোটেল জোনের ৩ নম্বর গলির মমস হোটেলে নেয়া হয় তাকে। সেখানে মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়। এর দুই দিন পর তাকে বাড়ির সামনে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা।
মামলায় আশিক ছাড়াও তার বাবা নজরুল ইসলাম, মা রাজিয়া বেগম, বোনজামাই মোহাম্মদ কামরুল ও মোহাম্মদ রিয়াজ নামের একজনকে আসামি করা হয়েছে।

কিন্তু ওই ছাত্রীর সাথে আশিকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল দাবি করে আশিকের বাবা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ছেলে-মেয়ে দুজন নিজেদের ইচ্ছায় সবকিছু করেছে, এখানে ধর্ষণের কিছু দেখি না।’
প্রসঙ্গত, এ দিকে এই ঘটনা নিয়ে এখন তোলপাড় চলছে সবখানে। সকলেই এমন ঘটনা নিয়ে জানাচ্ছেন বেশ ধিক্কার। বিশেষ করে বার বার কক্সবাজারে এমন ধরনের ঘটনা ঘটার কারনে নিরাপত্তা নিয়ে উঠেছে অনেক প্রশ্ন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net