এবার ভোটযুদ্ধে দেশের প্রভাবশালী এক মন্ত্রীর তিন ভাগিনা

এবার ভোটযুদ্ধে দেশের প্রভাবশালী এক মন্ত্রীর তিন ভাগিনা

সারা দেশে এখনো ধাপে ধাপে চলছে ইউপি নির্বাচন। আর এই ইউপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন অনেক প্রভাবশালীরাও। শুধু রাজনৈতিক নেতা কর্মীরাই নয়, তাদের পরিবারের অনেকেও করছেন অংশগ্রহণ। এ দিকে এবার শোনা গেল নতুন এক খবর। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় আলোচনায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন মন্ত্রীর তিন ভাগিনা। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তারা নির্বাচনী লড়াইয়ে অংশ নিয়েছেন।

তারা হলেন আওয়ামী লীগের মহাসচিব ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের তিন ভাগ্নে। তিন ভাগ্নে হলেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক মহাসচিব মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু। সাবেক রাষ্ট্রপতি জায়েদাল হক কচি। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মঞ্জু ও রিমন মন্ত্রীর নিজের বোনের ছেলে এবং সেতুমন্ত্রীর চাচাতো ভাইয়ের ছোট ভাই।
জানা গেছে, এবারই প্রথম ভোটের মাঠে মন্ত্রীর এই তিন ভাগ্নী। এর আগে তিনজনের কেউই নির্বাচনে অংশ নেননি। তবে ভোটারদের প্রতিক্রিয়ার ভিত্তিতে এবার তিনটি ইউনিয়নেই আলোচনায় এগিয়ে রয়েছেন তিন ভাগ্নে।

তিনটি ইউনিয়নের ভোটারদের সাথে কথা বলে তারা জানান, তারা ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগাতে সক্ষম হয়েছেন।
উপজেলা যুবলীগের সহ-সম্পাদক জুলফিকার হায়দার মোহন, চরপার্বতী ইউনিয়ন জেলা ২-এর ভোটার, মঞ্জু একজন দক্ষ সংগঠক। এ ছাড়া সেতুমন্ত্রীর সব বোনের মধ্যে বড় বোনের ছেলে তিনি। মন্ত্রীর ভাতিজি হওয়ায় তিনি ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারবেন। তাই এবার তার দিকেই ঝুঁকছেন ভোটাররা।
অন্যদিকে সালেকিন রিমনের মা, যিনি বয়সে খুবই ছোট, তিনি মেরি মন্ত্রীর বোনদের মধ্যে তৃতীয়। এলাকার তরুণদের ঐক্যবদ্ধ করার পাশাপাশি তরুণ ভোটাররাও রিমনকে পছন্দ করেন তার মার্জিত আচরণের জন্য।

ব্যবসায়ী কাশেদ চৌধুরী, জেলার ৭নং বাসিন্দা।
চরফকিরায় মন্ত্রী প্রার্থী নুরজাহান বেগমের চাচাতো বোন জায়েদাল হক কচি সাবেক ছাত্রনেতা ও প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী।
চরফকিরা ইউনিয়নের ভোটার মাসুদুর রহমান মিল্টন জানান, নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ভাবনা নিয়ে গত তিন বছর ধরে এলাকায় নিয়মিত কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন কচি। চরফকিরার রাজনীতিতে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তারকারী জনপ্রিয় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থন কচির বিজয়ের পথ আরও সুগম করবে বলেও তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।
প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরেই ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনিতীর সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি বর্তমানে আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আর সেই সাথে তিনি একাই সামলাচ্ছেন দুটি মন্ত্রনলায়ের দায়িত্ব। আর এই কারনেই তার তিন ভাগিনাকে নিয়ে এবার নির্বাচন উঠছে বেশ মাতামাতি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net