হাইকমিশনারের সঙ্গে বৈঠক শেষে মন্ত্রী স্বীকার করলেন ইভিএমে সমস্যা হতেই পারে

হাইকমিশনারের সঙ্গে বৈঠক শেষে মন্ত্রী স্বীকার করলেন ইভিএমে সমস্যা হতেই পারে

গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে নাসিক নির্বাচন এবং এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নানা মতবাদ উঠেছিল এবং সেই সাথে দেখা যায় নির্বাচনের দিন অনেকে নানা অভিযোগ করেছিল তবে সর্বোপরি এই নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে এবং সেই সাথে দেখা যাচ্ছে নাসিক নির্বাচন নিয়ে অনেকে সন্তুষ্ট।এই নির্বাচনে কোথাও কোন বিশৃঙ্খলার তেমন খবর আসেনি গনমাধ্যমে।
ভোটের সময় ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যা থাকতে পারে। এটা শুধু আমাদের দেশেই হচ্ছে না। এই ত্রুটি সারা বিশ্বে ঘটে। এটা কোনো অভিযোগের ভিত্তি হতে পারে না। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থী তৈমুর আলমের বিরুদ্ধে ইভিএম কারচুপির অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম এ কথা বলেন।

সোমবার তার মন্ত্রণালয়ের কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীর সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, পরাজিত হলে প্রার্থীরা তাই বলবেন। মূলত ইভিএম নির্বাচনে কারচুপির কোনো সম্ভাবনা নেই।
প্রতিটি নির্বাচনে ইভিএম রাখার বিষয়ে তাজুল ইসলাম বলেন, সরকার চাইলে সারা দেশে ইভিএম ব্যবহার করতে পারত, কিন্তু তারা তা করছে না। কারণ ইভিএম একটি নতুন পদ্ধতি। যেকোনো নতুন পদ্ধতি কিছুটা চ্যালেঞ্জিং। বিশ্বের প্রতিটি দেশেই এই সমস্যা রয়েছে। আমেরিকান ও ভারতের নির্বাচনেও কিছু যান্ত্রিক গোলযোগ হয়েছে। সময়মতো সমস্যার সমাধান হবে। এখন সরকার চাইলেও দেশে ইভিএম চালু করতে পারবে না। দত্তক নিতে সময় লাগে। মানুষকে প্রযুক্তির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে এবং ব্যবহার করতে হবে। ”

নাসিকের নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন: “এই নির্বাচন সমগ্র জাতি এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় প্রত্যক্ষ করেছে।” মিডিয়া তার প্রথম হাত প্রত্যক্ষ করেছে। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটের পরও বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী। বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জে ইভিএমে সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে বলে কূটনীতিকদের কাছে বার্তা পৌঁছেছে। ‘

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংঘর্ষের বিষয়ে তাজুল ইসলাম বলেন: “জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। কোথাও নিজ প্রার্থীকে বিজয়ী করার লড়াইয়ে। এ ধরনের ঘটনার উদাহরণ শুধু বাংলাদেশে নয়, প্রতিবেশী দেশসহ সারা বিশ্বে”। ‘
ভোট না দেওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “ভোট না দিয়ে নয়, এটা অ-প্রতিদ্বন্দ্বীতার কথা। কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল না, এভাবেই হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ অনেক গণতান্ত্রিক দেশেই এমনটা হয়। ” ইংল্যান্ড ও ভারত। আমার নির্বাচনী এলাকাও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে।

এবার ইলেক্টনিক ভোটিং মেশিন ইভিএম এ ভোট হয়েছে নাসিক নির্বাচনে এবং এই নির্বাচনে অনেকে নানা অভিযোগ করেছেন এই ইভিএম নিয়ে। আওনেকে অভিযোগ করেছেন এই ইভিএম এ ত্রুটি ছিল এবং যে কারনে তারা কি প্রতিকে ভোট দিয়েছে তা তাদের বোধগম্য নয়

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net