নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন : নেপথ্যে সেই নানক-আজম

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন : নেপথ্যে সেই নানক-আজম

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশজুড়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে বেশ আলোচনা শুরু হয়। অবশেষে গতকাল রবিবার ওই সিটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই সিটি নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীকে নির্বাচনে ভালো অবস্থানে নেওয়ার জন্য দলের সিনিয়র নেতারা কজ করেছেন। আর ওই সকল সিনিয়র নেতাদের মধ্যে অন্যতম হলেন নানক-আজম। তাদের পরামর্শে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বিপুল ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছে।

দলের অনেক লড়াই, সংগ্রামে সারথী তারা। নেতা-কর্মীদের কাছে ক্রাইসিস ম্যানেজার নামেও পরিচিত। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার বিজয়ের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম আবারো নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করলেন।
নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের আহ্বায়ক ছিলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক ও মির্জা আজম। তার যোগ্য নেতৃত্ব নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ করেছে। শেষ মুহূর্তে কার্যত নিষ্ক্রিয় থাকা নেতা-কর্মীরা প্রকাশ্যে নৌকার পক্ষে প্রকাশ্যে নিজেদের ঘোষণা দেন। ফলস্বরূপ, নৌকার বিজয় হয়েছে।

নানক-আজম যুবলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হওয়ার জন্য দলীয় আন্দোলন-সং’গ্রামে সর্বদা অগ্রভাগে ছিলেন। সেই থেকে জুটি বলেও পরিচিত তারা। তারা বিডিআর বিদ্রোহের পুরোভাগে ছিল। সরকার ব’ন্দু’কের মুখে বিদ্রোহীদের কাছে যেতে দ্বিধা করেনি। বড় বড় সমাবেশ, সভা-সমাবেশ, দলের সংগঠন মানে নানক-আজমের মূল ভূমিকাও সেখানে অনিবার্য।
নানা কারণে নারায়ণগঞ্জ শহরের নির্বাচন আওয়ামী লীগের কাছে গুরুত্বপূর্ণ ছিল। শামীম ওসমানের মতো হেভিওয়েট নেতা, সেলিম ওসমানের মতো প্রভাবশালী ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যদের পক্ষে রাখা বা নিষ্ক্রিয় রেখে নানক-আজম ভালো কাজ করেছেন তা ভোট থেকে স্পষ্ট।

দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিমের মতো পোড়া নেতাদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে যা যা করা দরকার তা করেছেন নানক-আজম। বরাবরের মতো, আপনার সাংগঠনিক দক্ষতা, যোগ্যতা এবং 100% আন্তরিকতা এখানে প্রদর্শিত হয়। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও বলছেন, নানক-আজমের নারায়ণগঞ্জে নৌকার বিজয় ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। দলের শীর্ষ ম্যানেজমেন্টের সংকটের সময়ে তাদের বেছে নিতে ভুল হয়নি। যুবলীগের দুই কারিগর নানক-আজমও দলীয় সভানেত্রীর প্রতি আস্থা রেখেছেন। সূত্র: ঢাকাটাইমস

উল্লেখ্য, ক্ষমতাসীন দলের এই দুই রাজনৈতিক ব্যক্তি দেশ ও নিজ দের জন্য অনেক কাজ করে চলেছেন। তেমনি নারায়ণগঞ্জে নৌকার পক্ষে তারা দুজন অনেক কাজ করেছেন। আর তাদের দুজনের পরামর্শে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী কাজ করে সফলতা পেয়েছেন। এ জন্য আওয়ামী লীগের এই দুই রাজনৈতিক নেতাকে বর্তমানে অনেকে প্রসংশা করছে। তারা দুজন সামনের দিনে দেশ ও দলের জন্য অনেক কাজ করবেন এমনটা আশা করছে ক্ষমতাসীন দল।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net