রহস্যময় হারিছ চৌধুরী সম্পর্কে মেয়ে জানালেন নতুন তথ্য

রহস্যময় হারিছ চৌধুরী সম্পর্কে মেয়ে জানালেন নতুন তথ্য

Ads

হারিছ চৌধুরী একসময় বাংলাদেশের রাজনীতির জগতে বড় নাম ছিলেন। এক সময় দেশের রাজনীতিতে তার প্রভাব ছিল বেশ প্রবল। কিন্তু তার জীবনে কোনো কিছুই এত দীর্ঘস্থায়ী ছিল না। রাজনীতির ময়দানে তিনি যত দ্রুত উপরে উঠেছিলেন তত দ্রুত নেমে গেছেন। একপর্যায়ে তিনি একেবারে চুপ হয়ে গেলেন। তার কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। অনেকেই বলেছেন তিনি বিদেশে আছেন। মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকেই তিনি আলোচনায় রয়েছেন। কিন্তু মজার ব্যাপার হলো তার পুরো জীবনটাই ছিল রহস্যময়। দ্রুততম সময়ের দ্রুত উত্থান এবং পতনের গল্প, তবে সবচেয়ে রহস্যময় ছিল তার অন্তর্ধান, সেই সাথে তার মৃত্যুর রহস্যও।

২০০৬ সালে একদিন তিনি হঠাৎ আত্মগোপনে চলে যান। পরবর্তী ১৪ বছর কোন খোঁজ নেই। এক দশকেরও বেশি সময় পর গত মঙ্গলবার যখন তার মৃত্যুর খবর এল, তখনও রহস্যের সৃষ্টি হয়।
আমি হারিছ চৌধুরীর কথা বলছি। চারদলীয় জোট সরকারের আমলে প্রভাবশালী এই রাজনীতিকের জীবন-মৃত্যু রহস্যে ঘেরা।

যেভাবে উত্থান

তার পুরো নাম আবুল হারিছ চৌধুরী, তবে তিনি হারিছ চৌধুরী নামেই পরিচিত। তিনি সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার দিঘীরপাড় পূর্ব ইউনিয়নের দর্পনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নটরডেম কলেজ, ঢাকা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন।
প্রথমদিকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন হরিশ। 1987 সালে তিনি জিয়াউর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে জগদলে যোগ দেন। তাই তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

বিএনপি গঠনের পর সিলেট জেলায় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হন হারিছ। পরবর্তীকালে তিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সহ-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।
হারিছ ১৯৮৯ ও ১৯৯১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে হেরে গেলেও ১৯৯১ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী হন। ২০০১ সালে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর খালেদা জিয়া হারিছ চৌধুরীকে তার রাজনৈতিক সচিব হিসেবে নিয়োগ দেন।
তিনি হাওয়া ভবনের ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠেন, যা সেই শাসনামলে ক্ষমতার অন্যতম কেন্দ্রে পরিণত হয়; তিনি তারেক রহমানের বিশেষ আস্থাভাজন ছিলেন। ফলে তিনি দল ও সরকারের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিতে পরিণত হন।
এরপর থেকে হারিছ চৌধুরীর ক্ষমতা ও সম্পদ ক্রমান্বয়ে বাড়তে থাকে। অভিযোগের পাল্লাও ভারী হয়ে ওঠে।

রহস্যময় নিখোঁজ
২০০৬ সালে ওয়ান-ইলেভেনে সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় এলে হারিছ চৌধুরী বিশৃঙ্খলায় নিক্ষিপ্ত হন। তার ক্ষমতা ম্লান হয়ে যাচ্ছে। উল্টো তিনি হয়ে ওঠেন দেশের অন্যতম প্রধান দুর্নীতিবাজ। আরও নানা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত এই রাজনীতিকের নাম। ২০০৭ সালে দেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণার পর দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হওয়ায় হারিছ চৌধুরী আত্মগোপনে চলে যান।

পরিবারের ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, সেনা-সমর্থিত সরকার ক্ষমতায় আসার এক সপ্তাহ পর ঢাকা থেকে স্ত্রীকে নিয়ে সিলেটের গ্রামের বাড়িতে আসেন হরিশ। রাতে যৌথবাহিনী তার বাড়িতে তল্লাশি চালালেও তাকে পায়নি।
এরপর থেকে হারিছ চৌধুরীর কোনো হাদিস নেই। বেকুব তাকে নিয়ে গুজব ছড়ায়। কেউ বলছেন সিলেটে, আবার কেউ বলছেন ঢাকায়। আবার কেউ কেউ দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার তথ্য দিয়ে যাচ্ছেন। ভারত, ইরান, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র: সময়ে সময়ে হারিছ চৌধুরীর অবস্থান শোনা গেলেও নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি। মুখ খোলে না তার পরিবার। এমনকি পুলিশও শনাক্ত করতে পারে না।
দিনের মধ্যে. লোকচক্ষুর আড়ালে সময়ে সময়ে আলোচনায় উঠে আসে হারিছ চৌধুরীর নাম। বিশেষ করে ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলায় অভিযুক্ত হওয়ায় এসব মামলার শুনানির সময়ও তার নাম উঠে আসে। এ দুটি মামলায় হারিছ চৌধুরীকে সাজা দেওয়া হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। অফিস ছাড়ার পর তিনি কী করবেন তা এই মুহূর্তে অজানা। এমনই তার রহস্যময় নিখোঁজ।

হারিছ চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, যৌথ বাহিনীর অভিযানের পর কয়েকদিন সিলেট ও ​​হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে থাকার পর ২০০৬ সালের ২৯ জানুয়ারি জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যায় হারিছ। এরপর তিনি ভারতের আসামের করিমগঞ্জ জেলার বদরপুরে তার নানার বাড়িতে চলে যান। সেখান থেকে পাকিস্তান হয়ে ইরানে যান তার ভাই আবদুল মুকিত চৌধুরীর কাছে। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েক বছর ধরে তিনি যুক্তরাজ্যে ইরানে রয়েছেন। তিনি যুক্তরাজ্যে স্ত্রী ও সন্তানদের রেখে গেছেন।
তবে আত্মগোপনে যাওয়ার পর হরিশকে আর জনসমক্ষে দেখা যায়নি। রাজনৈতিক সহকর্মীদের সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগ ছিল না। এমনকি দেশে আত্মীয়স্বজনের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখেননি বলে জানান তিনি।
হরিশ ভারতে যাতায়াত করতেন এবং ব্যবসা দেখাশোনা করতেন, তার ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র জানায়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net