রং নাম্বারের এক ফোনে প্রেম; বদলে দিল পুরো জীবন!

131

মোবাইলে রং নাম্বারের এক ফোনে কথিত সম্পর্কের পরিণতি প্রেম-ধর্ষণ। বদলে দিয়েছে এক তরুণীর জীবন। এমন এক ঘটনায় মেয়েটি গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বালিয়াকান্দি থানায় একটি মামলা করেন।
জানা যায়, চট্টগ্রাম থেকে তরুণীকে (২০) রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার পাঁচপোটরা গ্রামের এক বাড়িতে এনে আটকে রেখে ধর্ষণ করে পারভেজ (৩০) নামের এক যুবক।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি জানান, চট্টগ্রাম জেলার একটি গ্রামে তাঁর বাড়ি। তাঁর সঙ্গে মোবাইল ফোনের রং নাম্বারে পরিচয় হয় ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন গ্রামের পারভেজের (৩০)। এই পরিচয়ের সূত্র ধরে তাঁকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ডেকে আনে পারভেজ। তিনি গত ১৬ এপ্রিল ফরিদপুরের কামারখালী সেতু এলাকায় বাস থেকে নামেন। এরপর তাঁকে পাঁচপোটরা গ্রামের শরৎ বিশ্বাসের ছেলে শ্যামল বিশ্বাসের বাড়িতে মোটরসাইকেলযোগে আনে। ওই বাড়ির লোকজনের সহায়তায় তাঁকে ঘরের মধ্যে আটকে রেখে যৌন নির্যাতন করে। গত বুধবার সন্ধ্যার আগে পারভেজ তাঁকে মোটরসাইকেলে করে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার প্রাক্কালে স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে যায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পারভেজ পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ সদস্যরা তাঁকে উদ্ধার করেন। তিনি প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগে চারজনের নাম ও অজ্ঞাতনামা দুজনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বালিয়াকান্দি থানার পরিদর্শক হাসিনা বেগম জানান, অপরাধে সহায়তা করার অভিযোগে পাঁচপোটরা গ্রামের শ্যামল বিশ্বাসের স্ত্রী গীতা বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।