দেশটির প্রতিটি বাড়িতে এখন গাঁজার সর্বোচ্চ ৪ টি গাছ লাগানো যাবে।

দেশটির প্রতিটি বাড়িতে এখন গাঁজার সর্বোচ্চ ৪ টি গাছ লাগানো যাবে।

ইউরোপে’র মহাদেশ এর প্রথম দেশ হিসেবে গাঁজা উৎপাদন এবং সেটি ব্যব’হারের আইনত বৈধতা দিয়েছে লুক্সেমবার্গ।

 লুক্সে’মবার্গ বেল’জিয়াম, ‘ফ্রা’ন্স ও জা’র্মানি’র সী’মান্তের স’ঙ্গে যুক্ত। দেশটির প্রতিটি বাড়িতে এখন গাঁজার সর্বোচত””৪  টি গাছ লাগানো যাবে।তবে, জনসম্মুখে গাঁজা সে’বন এবং গাঁজা পরিবহন করা এখনও নিষিদ্ধ। এছাড়া, তিন গ্রামের কম গাঁজা’ সেবন ও বহন করা এখন থেকে আইনিভাবে অপরাধ হিসে’বে গণ্য হবে না।তবে, বিষয়টি ‘নীতিবহির্ভূত হিসে’বে চিহ্নিত থাকবে।তিন গ্রামের কম গাঁজা পা’ওয়া গেলে এর আগে ২৫১ ইউরো জরিমানা’ দিতে হ’লেও এখন মাত্র ‘২৫ ইউরো জরিমানা’ ধার্য ‘করা হবে’।গাঁজা নিষিদ্ধ ‘ঘোষণার কার্যহীন’তার উল্লেখ করে ‘চোরাচালা’ন বন্ধ করতে গত’ ২২ অক্টো’বর দেশটির ‘সরকার ঐতিহাসিক এই ঘোষণা প্র’দান করে।আইনমন্ত্রী স্যা’ম ট্যা’মসন বলেন,-‘

 

মাদক ইস্যু নিয়ে আমাদের কিছু করতে হতো। গাঁজা সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত মাদক এবং বেআ’ইনি বাজারের বড় অংশজুড়ে এর বেচাকেনা চলে।আমরা মানুষকে ঘরেই গাঁজা চাষের অনুমতি দিয়ে শুরু করতে চাই,” বলেন ‘তিনি।বিষয়টি হলো, -গাঁজা সে’বনের জন্য ‘কোনো সেবককে যেন’ বেআইনি পরিস্থিতিতে পড়তে না হয়। গাঁ”জা উৎপা’দন, পরিবহন ও বিক্রির সঙ্গে বহু করুণ কাহিনী জড়িয়ে রয়েছে। আমরা এই অবৈধ চক্র’কে সম’র্থন করি না।’অবৈধ কা’লো’ বাজার থেকে আরও দূরে যেতে আমরা যতদূর করতে পারি করব,-বলেন ট্যামসন।সরকারের লক্ষ্য অনুযায়ী রাষ্ট্রীয়ভাবে গাঁজার উৎপাদন ও সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করা হবে। সেখান থেকে আসা লাভের অর্থ দিয়ে মাদ’কাসক্তি প্রতিরো’ধের জন্য শিক্ষা ও ‘স্বাস্থ্যসেবা’য় বিনিয়োগ করা’ হবে।এদিকে, অন’লাইনে মানুষ গাঁজার বীজ ক্রয়ের অনুমতি পাবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net