মার্কিন কংগ্রেসে ইফতার মাহফিল করলেন ৩ মুসলমান সদস্য

13

স্টাফ রিপোর্টার: ছবি: এএফপিমার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ইলহান ওমর রমজানে সারা দিন না খেয়ে থেকেও কখনো কখনো নিজের দায়িত্বের কারণে ঠিকমতো রোজা ভাঙতে পারেন না। সূর্য ডুবে যাওয়ার সঙ্গে তাড়াহুড়ো করে কয়েক লোকমা খেয়ে হাউসে ভোট কিংবা কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে হয়।
কিন্তু সোমবার এমনটি ঘটেনি। মাসজুড়ে রমজানের মাঝপথে এদিন রাতে টেবিলে বসে নিজের খাবার উপভোগ করলেন তিনিসহ আরও দুই মুসলমান কংগ্রেস সদস্য।
এদিন দেশটির কংগ্রেসের তিন মুসলমান সদস্য তার সহকর্মীদের জন্য ইফতারের আয়োজন করেছেন। এতে ইলহান ওমর, রাশিদা তালিব ও অ্যান্ড্রে কারসন নিজেদের ধর্মীয় বিশ্বাসের কথা সহকর্মীদের কাছে ব্যাখ্যা করেন।-খবর ওয়াশিংটন পোস্ট ও গার্ডিয়ানের
ব্যাপক রাজনৈতিক আলোচনার পাশাপাশি নান ও কাবাব দিয়ে রোজা ভাঙেন তারা। সিনেটর রিচার্ড ডি ডুরবিন বলেন, ধর্ম মানুষকে মূল্যবোধ ও অনুপ্রেরণা দেয়। আমরা এই শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদ, শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদ বন্ধ করে দেব। কারণ এটা খুবই বিদ্বেষপূর্ণ, বিভাজনকারী ও প্রাণঘাতী।

মার্কিন কংগ্রেস সদস্য ইলহান ওমর গত বছর মিনেসোটা থেকে প্রাইমারিতে জয় লাভ করে একজন মুসলমান নারী হিসেবে দেশটির ইতিহাসে নিজের নাম লিখিয়েছেন। এরপর ন্যান্সি পেলোসির সঙ্গে তার বৈঠক হয়েছিল।
প্রতিনিধি পরিষদের সংখ্যালঘুদের নেতা ছিলেন পেলোসি। তখন তিনি আভাস দেন, নির্ভরযোগ্য ডেমোক্রেটিক আসনটি থেকে সহজ জয় পেতে পারেন ইলহান ওমর।
তবে ইলহানকে এমন একটি বিষয়ের নাম জিজ্ঞেস করেন পেলোসি, যেটা তাকে হতাশ করেছে। সোমালি শরণার্থী থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া ইলহান জবাবে বলেন, এটা হিজাব।
সোমবার প্রথমবারের মতো কংগ্রেসের ইফতারে পেলোসির সঙ্গে মতবিনিময়ের কথা স্মরণ করলেন ইলহান ওমর। এতে অন্তত ১০০ মার্কিন মুসলমান অংশ নেন। কংগ্রেসের ইতিহাসে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি মুহূর্ত।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল হিলে কংগ্রেসের অফিসের ভেতর প্রথম মুসলমান নারী হিসেবে শপথ নিতে তাকে প্রতিকূলতার মুখোমুখি হতে হবে বলে পেলোসি ওই বৈঠকে তা পরোক্ষভাবে উল্লেখ করেছিলেন।
কংগ্রেস সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার পর থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যাপক আক্রমণের শিকার হয়েছেন এই দুই মুসলমান নারী। সূত্র যুগান্তর