টিপ পরায় উত্ত্যক্ত : আসল ঘটনা জানালেন পুলিশ

টিপ পরায় উত্ত্যক্ত : আসল ঘটনা জানালেন পুলিশ

রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় এক শিক্ষিকাকে কপালে টিপ দিয়ে হয়রানির ঘটনায় এক পুলিশ কনস্টেবলকে শনাক্ত করে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। সোমবার সকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আটক কনস্টেবলের নাম নাজমুল তারেক। আমরা তাকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে শনাক্ত করেছি। সোমবার সকালে ওই পুলিশ সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের কর্মকর্তারা। জানা গেছে, ঘটনাস্থলের আশপাশের বিভিন্ন মার্কেটের দোকানের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে নাজমুলকে শনাক্ত করা হয়।

শিক্ষিকাকে কপালে টিপ দেওয়াকে কেন্দ্র করে হয়রানির অভিযোগে এক পুলিশ কনস্টেবল পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। এ বিষয়ে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার। অভিযুক্ত কনস্টেবলের নাম নাজমুল তারেক। তিনি পুলিশ লাইনে সংযুক্ত ছিলেন এবং ভিআইপি ও ভিভিআইপিদের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন, পুলিশ জানিয়েছে। সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে তার কার্যালয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, আমরা তার সঙ্গে কথা বলেছি। অভিযোগকারীর অভিযোগ, ভদ্র মহিলার সঙ্গে একটি ঘটনা ঘটেছে। সাধারণ ডায়েরিতে অভিযোগকারীর অভিযোগ যথাসময়ে তদন্ত করুন। তিনি আরও জানান, ওই নারী পুলিশ সদস্যের নাম ও পদবি উল্লেখ করেননি। শুধু একজন পুলিশ সদস্য কথা বলেছেন। শনিবার (২ এপ্রিল) তেজগাঁও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক লতা সমাদ্দার শেরেবাংলা নগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

থানায় দায়ের করা অভিযোগে লতা সমাদ্দার লিখেছেন, শনিবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক এলাকা থেকে রিকশায় করে ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমার সামনে থেকে বের হন। সেখান থেকে হেঁটে তেজগাঁও কলেজের কর্মস্থলের দিকে যাচ্ছিলেন। সেজান পয়েন্টের সামনে পার্ক করা মোটরসাইকেলে পুলিশের ইউনিফর্ম পরা এক ব্যক্তি বসে ছিলেন। মোটরসাইকেল পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় লতার কপালে টিপ পরা নিয়ে বাজে মন্তব্য করেন ওই ব্যক্তি। একপর্যায়ে পুলিশের ইউনিফর্ম পরা ওই ব্যক্তি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। ঘটনার প্রতিবাদ করায় লতাকে আবারও গালিগালাজ করা হয়। লোকটি মন্তব্য করলো, টিপ পরছোস কেন? লতার অভিযোগ, তিনি প্রতিবাদ করার সময় পুলিশ সদস্য তাকে মোটরসাইকেলর চাকার মাধ্যেমে তার পায়ের উপরে চাপা দেয়। এই ঘটনায় তিনি আহত হন। পরে তিনি কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশকে খবর দেন। এরপর তাকে জিডি করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, কপালে টিপ পরাকে কেন্দ্র করে এক কলেজ শিক্ষিকাকে অপমান করেছেন এক পুলিশ সদস্য। এই বিষয়কে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যেমে নাবিধ প্রতিবাদমুলক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন থানা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন লতা সামাদ্দার। অভিযোগ পত্রে উল্লেখ ছিলো কপালে টিপ দিয়ে হাঁটার সময় রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় তাকে লাঞ্ছিত করা হয় এবং হ//ত্যার সম্মুক্ষিনও হন তিনি। ভুক্তভোগীর নাম লতা সমাদ্দার। তিনি ঢাকার তেজগাঁও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক। ওই পুলিশ সদস্যের শরীরের আকৃতি ছাড়া আর কিছুই জানাতে পেরেছিলেন না ঐ শিক্ষিকা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net