পতাকা, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পায়ের কাছে রেখে আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠান

পতাকা, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পায়ের কাছে রেখে আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠান

বগুড়ায় আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ঘিরে সৃষ্টি হয়েছে বিতর্ক। সেখানে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রীর ছবি ও জাতীয় পতাকা মেঝেতে ফেলে রাখার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। দলের স্থানীয় কর্মীরাও ক্ষুব্ধ আয়োজকদের এমন কাজে। এ ঘটনার দায় স্বীকার করে ক্ষমাও চেয়েছে আয়োজকরাও।

মঞ্চে বাদ্যযন্ত্রের সাথে ঠেস দিয়ে রাখা বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর প্রতিকৃতি সাথে জাতীয় পতাকা। সেই মঞ্চে নেচে-গেয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে চলেছে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। সম্প্রতি বগুড়ার গাবতলী উপজেলার মহিষাবান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। উপলক্ষ্য ছিল উপজেলা কমিটির সদ্য ঘোষিত নেতাদের সংবর্ধনা দেয়া।

মহিষাবান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ১৪ মার্চ রাতে ওই অনুষ্ঠানের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এ ঘটনার ভিডিওগুলো। জাতীয় পতাকা, জাতির জনক আর প্রধানমন্ত্রীর ছবি এভাবে ফেলে রেখে অনুষ্ঠান পরিবেশন করায় সমালোচনায় মুখর হয়েছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকীরা। দলের স্থানীয় নেতাকর্মীরাও ক্ষুব্ধ আয়োজকদের এমন কর্মকাণ্ডে। মহিষাবান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল হক পাইকার বলেন, অনুষ্ঠানে এতগুলো মানুষ, কারো চোখেই এই দৃশ্য দৃষ্টিকটু লাগলো না! যারা সত্যিকারের আওয়ামী লীগ করে, তাদের কাছে অন্তত এই দৃশ্য দৃষ্টিকটু লাগার কথা।

মঞ্চে পতাকা এবং ছবি দুটি রেখেছিলেন স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ কর্মী। তার দাবি একটি গান পরিবেশনের সময় ব্যবহারের জন্য তিনি মঞ্চে নিয়ে রাখেন ছবি আর পতাকা। কিন্তু তার পালা আসার আগে ওভাবেই থেকে যায় সেগুলো।
যমুনা নিউজের কাছে আসা ওই অনুষ্ঠানের প্রায় দেড় ঘণ্টার ভিডিওতে দেখা মিলেছে একই দৃশ্য। যদিও আয়োজকদের দাবি, অল্প সময়ের জন্য রাখা হয়েছিলো ছবি আর জাতীয় পাতাকা। বিষয়টি নিয়ে ক্যামেরায় কথা না বললেও বিষয়টি খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net