1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : agustinlittle7 :
  3. [email protected] : annabentley27 :
  4. [email protected] : arleneross2442 :
  5. [email protected] : artfenwick1917 :
  6. [email protected] : cassieosby58 :
  7. [email protected] : cecilia5898 :
  8. [email protected] : claritasalley69 :
  9. [email protected] : cleveland69l :
  10. [email protected] : corinneo43 :
  11. [email protected] : dariosolander4 :
  12. [email protected] : desmondsligo :
  13. [email protected] : diantolmie :
  14. [email protected] : efrenniven :
  15. [email protected] : erikamarchand15 :
  16. [email protected] : ethann2150249 :
  17. [email protected] : eugeniaglover21 :
  18. [email protected] : fkfmitzi153 :
  19. [email protected] : franziskadomingu :
  20. [email protected] : gertrudefairbrid :
  21. [email protected] : giseleweisz41 :
  22. [email protected] : isidrostump :
  23. [email protected] : issacwillie54 :
  24. [email protected] : janiewentworth :
  25. [email protected] : jayroyston4083 :
  26. [email protected] : jeanetteaycock :
  27. [email protected] : jerristacey07 :
  28. [email protected] : joesphugi7 :
  29. [email protected] : josefq418299219 :
  30. [email protected] : juliopeel155781 :
  31. [email protected]ly.com : justineautry36 :
  32. [email protected] : kareemwebster :
  33. [email protected] : karissahigginbot :
  34. [email protected] : kasharosado85 :
  35. [email protected] : kellieepps888 :
  36. [email protected] : kurttheodor :
  37. [email protected] : larrymattocks :
  38. [email protected] : lauralane895570 :
  39. [email protected] : lavondarankin7 :
  40. [email protected] : lillyaviles1003 :
  41. [email protected] : linneamauer :
  42. [email protected] : lizzieladd027 :
  43. [email protected] : louannemei58 :
  44. [email protected] : ltnsommer417 :
  45. [email protected] : mairalan794258 :
  46. [email protected] : malissacollins2 :
  47. [email protected] : marcel6823 :
  48. [email protected] : margaritoshackle :
  49. [email protected] : mario11d262535 :
  50. [email protected] : mauriciocarmody :
  51. [email protected] : mercedesmoffet5 :
  52. [email protected] : news-jamuna :
  53. [email protected] : pamelad61341 :
  54. [email protected] : phillipbarth5 :
  55. [email protected] : phyllise84 :
  56. [email protected] : ramonitasjr :
  57. [email protected] : raymonrivas868 :
  58. [email protected] : sariyerdating111 :
  59. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  60. [email protected] : scotbutters7337 :
  61. [email protected] : silviasouthern :
  62. [email protected] : staceynation5 :
  63. [email protected] : susannahmerrell :
  64. [email protected] : tawnyae94619898 :
  65. [email protected] : terencemayo6232 :
  66. [email protected] : tomlambie124602 :
  67. [email protected] : vanessawvf :
  68. [email protected] : waylonkohn :
  69. [email protected] : wileyeichel :
  70. [email protected] : willieheron5 :
  71. [email protected] : wpuser_xhctsxdoxoar :
  72. [email protected] : zara033393349 :
জা'নেন কি'? যে নদী'র 'পানি' ক্ষণে ক্ষণে রং বদ'লায়! - NTN BD
মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন

জা’নেন কি’? যে নদী’র ‘পানি’ ক্ষণে ক্ষণে রং বদ’লায়!

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ২২৮ Time View

কখনো লাল, কখ’নো নীল, কখনোবা ‘খয়েরি, কালো আবার কখনো দুধের মতো সাদা। একেক’ সময় একেক রং ধারণ করে নদীর পানি। না, রূপকথার ‘কোন ‘জাদুকরি নদীর কথা বলা হচ্ছে না। শুনতে’ অবাক লাগলে’ও, এমনই এক নদী আছে ম’য়মনসিংহ জেলার’ ত্রিশাল উপজেলায়। ‘নদী’টির নাম বানার নদী। যে জলধারা’র পানি দিয়ে হতো কৃ’ষিকাজ, খাওয়ানো হতো গ’বাদিপশুকে, সেই পা’নিই এখন এ’লাকাবা’সীর কাছে রী’তিমত আতঙ্ক। কেন নদীর পানির এমন পরিবর্তন তার অনুসন্ধান চালিয়েছে দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

 

সরেজমিনে গত ১৬ অক্টোবর” ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার আমি’রাবাড়ি ইউনিয়নে গিয়ে চমকে’ উঠতে হলো। ঢাকা-ময়ম’নসিংহ মহাসড়কের বানার ব্রিজের নিচে টকটকে লাল পানি। এ যেন রক্তের বন্যা! নদী’র পার ঘেঁষে যতদূর হাটা যায়, পানি’র রংয়ের কোন পরিবর্তন নেই।পরদিন (১৭ অক্টোবর) দুপুরে আবার বানার নদীতে হাজির হয়ে দেখা যায়, পানি খয়েরি রংয়ের। পার ঘেঁষে করা হয় নদীকে অনুসরণ। ঘণ্টা দুই হাঁ’টার পর দেখা’ যায়, বানার নদীটি গিয়ে মি’শেছে উপজেলার আরেক নদী খিরুতে। এই খিরু নদীর প্রবাহ আবার গিয়ে মেশে শীতলক্ষ্যা নদীতে

নদীর পানির রং’য়ে’র পরিবর্তনের বিষ’য়ে জানতে কথা হয় স্থানীয়দে’র সাথে। আমিরাবাড়ি ইউনিয়নে নারায়ণপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল বারেক জানান, পানির এই আচরণ তারা লক্ষ্য করছেন দীর্ঘদিন ধরে। এমনও দিন যায়, সকালে’ এক ধরনের রং, বিকালে আরেক ধরন। নদীজুড়ে পানির এই অবস্থা দেখে আতঙ্কিত তারা। কোথা থেকে এই ধরনের পানি আসে জানেন না তিনি।

 

রঙ্গিন পানির ‘উৎস খুঁজতে এরপরের যাত্রা উজানের দিকে। প্রায় সাত কিলোমিটার যাওয়ার পর দেখা মেলে একটি খালের। আমিরাবাড়ি ইউনিয়নের মুক্ষপুর এলাকায় এই খালটি ‘চৌহার খাল’ নামে পরিচিত। দেখা যায়, খালটি যে’খানে নদী’তে মি’শেছে তা”র উজানে’র নদীর পানির রং স্বাভাবিক। খাল ধরে এগিয়ে গেলে পানি পৌঁছাবে গুজিয়াম-আমি’রাবাড়ি সড়কের একটি ‘কালভার্টের নিচে। সেখানে দেখা যায়, একটি পাইপ’লাই’নের মাথা থেকে” অবিরাম বের’ হচ্ছে ধোঁ’য়াও’ঠা গরম রঙ্গিন পানি। চৌহার খাল ‘হয়ে মিশে যাচ্ছে বানার নদী’তে। এরপর এই সুরঙ্গ পৌঁ’ছেছে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে ড্রেসডেন টেক্সটাইলস লিমি’টেড নামে এ’কটি কোম্পানি’র সীমানার ‘পাশে।

 

   ড্রেসডেন টেক্স”টা’ইলস লিমি’টেড কোম্পানির সহকারী সাধারণ ব্যবস্থাপ’ক নুরে আলম খোকন কোম্পানির ফটকে এসে দেখা করেন। তার ‘কাছে পানির প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে বিষয়টি এড়িয়ে যানএরপর এই প্রতিবেদক তাদের তরল বর্জ্য শোধনাগার (ইটি’পি) সচল কিনা ‘দেখতে চাইলে তাকে প্রবেশে বাধা’ দেওয়া হয়। একপর্যায়ে” প্র”শ্নের মুখে নুরে আলম’ স্বীকার’ করেন, এখনো কোম্পানিটিতে ইটিপি স্থাপনের কাজ শেষ হয়নি। অর্থা’ৎ কারখানার দূষিত পানি সরাসরি ফেলা হচ্ছে নদীতে। তিনি সংবাদ প্রকাশ ‘না ক’রার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, দ্রুতই ইটিপি ‘স্থাপন করা হবে।  রং পরিবর্ত’নের সাথে সাথে আশপাশের মানুষের কাছে নদীটি এখন’ আতঙ্কের কা’রণ’। বিষাক্ত এই’ পা’নির কারণে ক্ষতি’গ্র’স্ত হচ্ছে কৃ’ষি’কাজ। মারা যাচ্ছে প্রা’ণী

নীয় কৃ’ষক চান মিয়া বলেন, আগে নদীর পাশে রবিশস্যসহ নানা রকম ফসলের আবাদ করতেন তারা। নদীর পা’নি নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণে এখন উৎপাদন কমেছে’। বিশেষ করে ধানের চারার আবাদ করা হতো নদীর পাশের জ’মিতে। এখন করা যাচ্ছে না।’কামাল হোসেন না’মে স্থানীয় এক যুব”’কের সাথে ‘কথা হলে তিনি জা’নান, কিছুদিন আগে এখা’নে নেমে পানি খাওয়ার কারণে তার ৬টি হাঁসের মৃত্যু হয়েছে। এরপর থেকে হাস-মু’র”গিকে’ নদীর পার ”থেকে দূরে’ রা’খেন” তিনি। আগে নদীর পানি” গরু, ছাগলকে খা’ও’য়াতেন; এখ’ন দূর থে’কেই ‘পানি আনে’ন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
©News Jamuna © All rights reserved
Develper By ITSadik.Xyz