বাংলাদেশে ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে আইনি লড়ায়ে “হাইকোর্টে গ্যারিনা কম্পানি”

বাংলাদেশে ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে আইনি লড়ায়ে “হাইকোর্টে গ্যারিনা কম্পানি”

আইনি লড়াইয়ে নেমেছে “ফ্রি ফায়ার গেমসের প্রস্তুতকারী” প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরের গ্যারায়ে”কম্পানি। অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে পাবজি, ফ্রি ফায়ারসহ ক্ষতিকর গেম বন্ধের রুলে পক্ষভুক্ত হতে হাইকোর্টে তারা আবেদন করেছেন। রবিবার এ বিষয়ে প্রাথমিক শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ পরবর্তী শুনানি ও আদেশের জন্য ২৬ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন।রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার মো. হুমায়ন কবির পল্লব এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।এদিন আদালতে গ্যারিনার পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জুনায়েদ আহমেদ চৌধুরী ও তানভীর কাদের। রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাওছার। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল গোলাম সরোয়ার পায়েল। এছাড়া বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই-রাকিব|ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব জানান, অনলাইনে ফ্রি ফায়ার গেমসের প্রস্ততকারী প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরের গ্যারিনা অনলাইন প্রাইভেট লিমিটেডের একজন প্রতিনিধি রিটের পক্ষভুক্ত হয়ে আবেদন করেছেন। বাংলাদেশের প্রতিনিধি হলেন রাজশাহীর মীর রাসেল আহমেদ

 

রিটকারী আইনজীবী জানান, শুনানিতে অনলাইনে ফ্রি ফায়ার গেমস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে যে ব্যবসা করছে তার অনুমতি আছে কি না, তারা লাইসেন্স করেছিল কি না, ট্যাক্স ও ভ্যাট দিচ্ছে কি না, আইনগত কী ভিত্তি রয়েছে, সেসব বিষয় জানতে চাওয়া হয়েছে।নিয়ম অনুযায়ী, গ্যারিনা আইনগতভাবে কতো

টাকা ব্যবসা করেছে, ট্রানজেকশন-ট্যাক্স কত, ভ্যাট ঠিক মতো পরিশোধ হচ্ছে কি-না, এসব নথিপত্র নিয়ে রিট মামলায় পক্ষভুক্ত হতে হবে।রিটের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৬ আগস্ট সব অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে পাবজি, ফ্রি ফায়ারসহ ক্ষতিকর গেম বন্ধের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে টিকটক, লাইকি, বিগো লাইভসহ ‘ক্ষতিকর’ অ্যাপ ও গেম বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চ|

এর আগে গত ২৪ জুন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মানবাধিকার সংগঠন ‘ল অ্যান্ড লাইফ’ ফাউন্ডেশনের পক্ষে গেম এবং অ্যাপগুলোর ক্ষতিকারক দিক তুলে জনস্বার্থে রিটটি করেন সুপ্রিম কোর্টের দুই আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব ও মোহাম্মদ কাউছার। রিটে দেশের অনলাইন প্লাটফর্মগুলো থেকে টিকটক, বিগো লাইভ, পাবজি, ফ্রি ফায়ার ও লাইকির মতো অনলাইন গেম এবং অ্যাপ বন্ধের নির্দেশনা দেইয়া হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net